বাংলা দ্বিতীয় পত্রঃ পুরুষ

বাংলা দ্বিতীয় পত্রঃ পুরুষ

পুরুষ বা পক্ষ কী?

শব্দের যে বৈশিষ্ট্য বা রুপ দ্বারা বক্তা, শ্রোতা বা উদ্দিষ্ট ব্যক্তি বা বস্তুকে নির্দেশ করা হয়, তাকে শব্দের পুরুষ বা পক্ষ বলে। অন্যভাবে বলা যায়, ব্যক্তি বা বস্তু নির্দেশক সর্বনামগুলোকেই ব্যাকরণে পুরুষ বলে। যেমন : আমি, আমরা, আমাদের, আমার, তুমি, তোমার, ও, ওরা, ওদের ইত্যাদি।

পুরুষের প্রকারভেদ

বাংলা ভাষায় ব্যবহৃত কতকগুলো সর্বনাম বিভিন্ন পক্ষ বা পুরুষ বুঝিয়ে থাকে। বিশেষ্য, সর্বনাম ও ক্রিয়ারই পক্ষ বা পুরুষ আছে। বিশেষণ বা অব্যয়ের পক্ষ বা পুরুষ নেই। পক্ষ বা পুরুষ অনুযায়ী এই সর্বনামগুলোকে তিন শ্রেণিতে ভাগ করা যায়। ফলে এই বিচারে বাংলা পুরুষ তিন প্রকার। যথা:

১. উত্তম পুরুষ : যে সর্বনাম দ্বারা বাক্যের বা উক্তির বক্তা নিজেকে কিংবা বক্তার দলের সবাইকে বোঝায়, এমন সর্বনাম পদগুলোকে উত্তম পুরুষ বলে। লক্ষ রাখবে, ক্রিয়ার বক্তা নিজের সম্বন্ধে বলে এই পুরুষ। মেযন: আমি, আমার, আমাকে, আমাদের ইত্যাদি।

২. মধ্যম পুরুষ : যে সর্বনাম দ্বারা শ্রোতা বা শ্রোতার দলের সবাইকে বোঝায় তাকে মধ্যম পুরুষ বলে। এখানে যার প্রতি বা উপস্থিত যাকে ডেকে বলা হয় সেই মধ্যম পুরুষ। যেমন: তুমি, তোমাকে, তোমার, তোমরা, তোরা, আপনি, আপনার ইত্যাদি।

৩. নাম পুরুষ : যে সর্বনামের দ্বারা বক্তা বা শ্রোতা ছাড়া অন্য ব্যক্তি বা ব্যক্তিবর্গকে বোঝায়, তাকে নাম পুরুষ বলে। ‘আমি’ ও ‘তুমি’ এবং এদের দলভুক্ত অন্যান্য সর্বনাম ছাড়া যাবতীয় সর্বনামই নাম পুরুষ। যেমন : সে, তাকে, এর, এরা, ও, ওকে, ফুল, পাখি, বই ইত্যাদি।

Related posts:

Leave a Reply